Categories
নিউজ

করোনা নিয়ে অপপ্রচার ঠেকাবে মিডিয়া সেল

অপপ্রচার ঠেকাবার জন্য মিডিয়া সেল গঠন করল স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়। কোভিড-১৯ নিয়ে মন্ত্রণালয়ের নেওয়া কার্যক্রম ও পদক্ষেপ সম্পর্কেও জানাবে। বৃহস্পতিবার (২৩ এপ্রিল ) মন্ত্রণালয়ের এক আদেশে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মো. হাবিবুর রহমান খানকে আহবায়ক করে অতিরিক্ত সচিব বেগম রীনা পারভীন, যুগ্মসচিব বেগম নিলুফার নাজনীন, মন্ত্রণালয়ের সিস্টেম অ্যানালিস্ট আহমেদ লতিফুল হোসেন  ও মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মাইদুল ইসলাম প্রধানকে সদস্য করে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিব খন্দকার জাকির হোসেন স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, ‘দেশে কোভিড -১৯  এর সংক্রমণ ও বিস্তার রোধে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক গৃহীত কার্যক্রম/পদক্ষেপের বিষয়ে নিয়মিত ব্রিফিং, সব মিডিয়াকে অবহিত এবং এ সংক্রান্ত বিষয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের বিরুদ্ধে অপপ্রচারের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে একটি মিডিয়া সেল গঠন করা হলো’।

মিডিয়া সেলের কার্যপরিধিতে রয়েছে, মন্ত্রণালয়ের কার্যক্রম সম্পর্কে তথ্য ও  বক্তব্যের বিষয়ে গণমাধ্যমসহ সব যোগাযোগ মাধ্যমের ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে কাজ করা, কমিটি বিভিন্ন প্রচার মাধ্যমে প্রকাশিত ও প্রচারিত সংবাদ প্রতিবেদন ইত্যাদি পর্যালোচনা করে তার সারসংক্ষেপ আকারে নিয়মিতভাবে মন্ত্রী ও সচিবকে অবহিত করা, কোভিড-১৯ সংক্রান্ত মন্ত্রণালয়ের গৃহীত কার্যক্রমের বিষয়ে নিয়মিত ব্রিফিং করা এবং সব মিডিয়াকে অবহিত করা এবং কোনও সংবাদ মাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোনও ভুল, বিভ্রান্তিকর ও উদ্দেশ্যমূলক তথ্য, ছবি, মন্তব্য প্রকাশিত হলে সে বিষয়ে সংশোধন, ব্যাখ্যা ও মন্ত্রণালয়ের বক্তব্য প্রস্তুত করে তা কর্তৃপক্ষের অনুমোদনক্রমে প্রচার ও প্রকাশের ব্যবস্থা করা।

এর আগে বৃহস্পতিবার  (২৩ এপ্রিল) করোনা পরিস্থিতি নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রতিদিনের স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কাউকে কোনও ধরনের বিবৃতি দেওয়া থেকে বিরত থাকতে বলেন। ভিআইপিদের জন্য আলাদা হাসপাতাল তৈরির খবর সঠিক নয় বলে দাবি করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে দেখা যায় ভিআইপিদের জন্য আলাদা হাসপাতাল তৈরি হচ্ছে। বিষয়টি সঠিক নয়। সরকার এ ধরনের কোনও ব্যবস্থা করেনি। সবার জন্য একই হাসপাতাল এবং একই চিকিৎসার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। আমি আহবান জানাবো কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া কেউ কোনও বিবৃতি দেবেন না।  কোনও হাসপাতালই লকডাউন করা হয়নি এবং করা হবেও না। অন্যান্য হাসপাতালে স্বাভাবিক চিকিৎসা বজায় আছে এবং থাকবে।

এর আগে গণমাধ্যমের সঙ্গে সরকারি হাসপাতালের নার্সদের কথা বলার ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়ে নোটিশ দিয়েছে নার্সিং ও মিডওয়াইফারি অধিদফতর। বুধবার (১৫ এপ্রিল) অধিদফতরের মহাপরিচালক (ডিজি) সিদ্দিকা আক্তার স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *